ABN News

প্রয়াত বহু পুরস্কারপ্রাপ্ত ও প্রশংসিত সাহিত্যিক সুব্রত মুখোপাধ্যায়

প্রয়াত বহু পুরস্কারপ্রাপ্ত ও প্রশংসিত সাহিত্যিক সুব্রত মুখোপাধ্যায়

বিশেষ সংবাদদাতা, দ্য রেগুলার :- এতদঞ্চলের সাহিত্যরসিক মহলে আজ শোকের ছায়া। আজ সকালে বারাকপুরের বাড়িতে প্রয়াত হলেন প্রখ্যাত সাহিত্যিক সুব্রত মুখোপাধ্যায়। কাঁচরাপাড়া সতীশ নন্দী রোডে তাঁর জন্ম। বাংলা সাহিত্য জগতে তাঁর লেখনী বহু প্রশংসিত হওয়ায় তাঁর সম্মান প্রাপ্তির ঝুলিটি হয়ে উঠেছিল বেশ বড়সড়। এজন্য কাঁচরাপাড়া, হালিশহর তথা ব্যারাকপুর মহকুমার মানুষের কাছে তিনি ছিলেন গর্ব। তাঁদের আদি বাড়ি হালিসহর চৌধুরীপাড়ায়। কাঁচরাপাড়া হার্ণেট হাই স্কুলের একসময়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন তাঁর পিতামহ ধীরাজ মুখোপাধ্যায়। তাঁর পিতা সত্যনারায়ণ মুখোপাধ্যায় এতদঞ্চলে ফুটবলার ও বাচিক শিল্পী হিসাবে খ্যাতি পেয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৪০ সালে কাজী নজরুল ইসলাম-এর হাত থেকে তাঁরই রচিত ‘বিদ্রোহী’ কবিতা আবৃত্তি করে প্রথম পুরস্কার গ্রহণ করেছিলেন সত্যনারায়ন। নিঃসন্দেহে সেই পরিবারের সুযোগ্য সন্তান ছিলেন ডব্লিউবিসিএস সুব্রত মুখোপাধ্যায়। পেশায় তিনি ছিলেন মহকুমা শাসক। বাংলা সাহিত্য জগতে তাঁর সাহিত্য প্রতিভা অনস্বীকার্য। প্রবন্ধ-নিবন্ধ থেকে উপন্যাস, গল্প থেকে ভ্রমণ কাহিনী – পেশাগত ব্যস্ততার মধ্যেও তিনি সাহিত্যের এই অলিন্দে সাধ্যমত সময় বের করে পদচারণা করেছেন, এ বড় কম কথা নয়। কয়েকটি লিটল ম্যাগাজিনেও তিনি বিভিন্ন সময়ে লেখালেখি করেছেন।

যতদূর জানা যায়, ১৯৮৯ সালে সমরেশ বসু সাহিত্য পুরস্কার অর্জন করে তাঁর সম্মান পাওয়া শুরু হয়। পেয়েছেন বঙ্কিম পুরস্কার তাঁর রচিত ‘রসিক’ উপন্যাসের জন্য। এছাড়া উল্লেখযোগ্য সম্মান প্রাপ্তি ঘটেছিল ২০১৩ সালে ‘বীরাঙ্গনা’ উপন্যাস লিখে ‘সাহিত্য একাদেমি’ পুরস্কার পাওয়ার মধ্য দিয়ে।

এতদঞ্চলের উল্লেখযোগ্য ‘ঈশ্বর গুপ্ত পুরস্কার’ তাঁকে প্রদান করেছিল ঈশ্বর গুপ্ত পরিষদ। এলাকার ইতিহাস সম্পর্কে তাঁর অধীর আগ্রহ ছিল। মধুকর, কালাধান, সন্ত্রাস, পৌর্ণমাসি, পাখি, নিখিলের অন্ধকার, পুরনো পথের রেখা প্রভৃতি যেমন তাঁর রচিত উল্লেখযোগ্য উপন্যাস, তেমনি উল্লেখযোগ্য গল্প গ্রন্থ হল, যে দেশেতে রজনী নাই, আব্দুর রহিম প্রভৃতি। বীজপুরের ভূমিপুত্র সুব্রত মুখোপাধ্যায় এতদঞ্চলের মানুষের কাছে সাহিত্যিক হিসেবে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *