ABN News

আজ স্কাইপে ক্লাবগুলোর সঙ্গে বৈঠক ফেডারেশনের, সমর্থকদের বঞ্চিত করে ডার্বি খেলা সম্ভব নয় – ইস্ট বেঙ্গল

আজ স্কাইপে ক্লাবগুলোর সঙ্গে বৈঠক ফেডারেশনের, সমর্থকদের বঞ্চিত করে ডার্বি খেলা সম্ভব নয় – ইস্ট বেঙ্গল

দ্যা রেগুলার স্পোর্টস : করোনা ভাইরাস আতঙ্কে রবিবার আই লিগের দ্বিতীয় পর্বের ডার্বি নিয়ে ঘোর অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এরসঙ্গে রয়েছে আই লিগের বাকি ২৭টি ম্যাচও। কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রকের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ক্রীড়া সংস্থাকে এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, যে স্পোর্টস ইভেন্টগুলি এখন চলছে, অর্থাৎ যা বাতিল করা সম্ভব নয় তা ক্লোজড ডোর করতে হবে। অর্থাৎ সেখানে দর্শকদের কোনও প্রবেশাধিকার থাকবে না। কারণ করোনা ভাইরাসের সঙ্গে মানুষের সুরক্ষার প্রশ্নও জড়িয়ে রয়েছে। রবিবার এই ডার্বির আয়োজক ইস্ট বেঙ্গল ক্লাব। তাদের শীর্ষ কর্তা দেবব্রত সরকার (নীতু) জানান, ‘দর্শকদের সুরক্ষার বিষয়টি অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ডার্বির সঙ্গে সমর্থকদের আবেগ জড়িয়ে রয়েছে। সমর্থকদের বঞ্চিত করে ডার্বি খেলা কোনমতেই সম্ভব নয়। ফলে ফেডারেশনকে অনুরোধ করব ডার্বির দিন পিছিয়ে দেওয়ার জন্য। শুক্রবার স্কাইপ বৈঠকে আমাদের মতামত জানাব।’ ডার্বি ঘিরে ইস্ট বেঙ্গলের আয়োজন প্রায় সম্পূর্ণ।

যে অর্থ খরচ হয়েছে তার কী হবে? ইস্ট বেঙ্গল সেই ক্ষতিপূরণ করার জন্য ফেডারেশনের কাছে আবেদন করবে। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ক্লাবগুলির সঙ্গে ফুটবলারদের চুক্তি রয়েছে। ফলে ডার্বির দিন পরিবর্তন করতে হলে এপ্রিলের মধ্যেই তা করতে হবে। কিন্তু কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রক করোনা ভাইরাস আতঙ্কে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ভারতে যাবতীয় স্পোর্টিং ইভেন্ট বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে। তবে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে যে স্পোর্টস ইভেন্টগুলি এখনও শুরু হয়নি তার উপর। ক্রীড়া মন্ত্রকের এই নির্দেশিকার পরই বৃহস্পতিবার তড়িঘড়ি করে এক বৈঠকে বসেছিলেন এআইএফএফ কর্তারা। এই ব্যাপারে ফেডারেশনের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, শুক্রবার বিকেল চারটের সময় স্কাইপের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্লাব প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করে এই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ফেডারেশনের এক সূত্র বলছে, তারা এককভাবে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। ক্লাব প্রতিনিধিদের বক্তব্যও তাদের শুনতে হবে। তাইজন্যই শুক্রবার বৈঠকে বসা হচ্ছে। তবে যা পরিস্থিতি, তাতে বাকি ম্যাচগুলি দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামেই হবে। কারণ আই লিগের উত্তরণ ও অবনমন রয়েছে। পুরো লিগ শেষ না হলে যা বোঝা সম্ভব নয়। ফলে আই লিগের বাকি ম্যাচগুলি সংগঠন করা ছাড়া উপায় নেই।  

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *